পোশাকের সাথে মিলিয়ে গহনা : কুষ্টিয়ায় ক্রমান্বয়েই জমে উঠছে ঈদ বাজার

কুষ্টিয়ায় ক্রমান্বয়ে জমে উঠছে ঈদ বাজার। মাত্র দুদিন আগেও দুপুরের পরে শহরের মার্কেটগুলোতে লোক খুঁজে পাওয়া না গেলেও এখন শহরের পাঁচ রাস্তার মোড় থেকে বড় বাজার রেলগেট পর্যন্ত সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত রীতিমত মানুষের মিছিল শুরু হয়ে গেছে । ঈদে পোশাক, জুতা, স্যান্ডেলের সাথে অলংকারও বিক্রি হচ্ছে বেশ । অলঙ্কার নারী সৌন্দর্যকে প্রস্ফুটিত করে তোলে। সৌন্দর্য সচেতন নারীদের কাছে তাই অলঙ্কার বা গহণার কদর চিরদিনের। পছন্দসই শাড়ি এবং ড্রেসের সঙ্গে যদি মনমতো অলঙ্কার পরা না হয় তাহলে ঈদের আনন্দটাই যেন মাটি হয়ে যায়। তাই ঈদের বাজার জমে ওঠার সঙ্গে সঙ্গে গয়নার দোকান বা জুয়েলারিগুলোতেও এখন ভিড় বাড়তে শুরু করেছে। কেউ নিজের জন্য আবার কেউ প্রিয়জনকে উপহার দেয়ার জন্য এই মার্কেট থেকে ওই মার্কেটে ছুটছেন মনকাড়া ডিজাইনের গয়না কেনার জন্য। ড্রেস এবং জুতার সঙ্গে ম্যাচিং করেই গহনা পছন্দ করছেন অলঙ্কার প্রিয় তরুণীরা। নতুন ডিজাইনে তৈরি করা পুতি, কড়ি, শেল, সুতা,কাঠ, পিতলসহ নানা ধরনের গয়নার প্রতি বর্তমান প্রজন্মের তরুণীদের চাহিদা ক্রমশ বৃদ্ধি পাচ্ছে। তবে অভিজাত শ্রেণীর ক্রেতাদের পছন্দ সোনা, রূপা ও হীরার গহনা। অভিজাত শ্রেণীর ক্রেতারা দামের চিন্তা না করে পছন্দকে প্রাধান্য দিয়ে কুষ্টিয়ার নামকরা জুয়েলারিগুলোতে ঘুরে বেড়াচ্ছেন মনের মতো অলঙ্কার কেনার জন্য। সরজমিন শহর ঘুরে দেখা যায়, এবার ঈদে পিতল কিংবা তামার গয়নার সম্মিলিত রূপে নতুন ডিজাইনের গয়নার পসরা সাজিয়েছেন ব্যবসায়ীরা। কুষ্টিয়া শহরের বিলাসবহুল লাভলী টাওয়ারে একটি জুয়েলারী দোকানে গয়না কিনতে এসেছেন শহরের কোর্টপাড়া এস,বি সড়কের হোসনে আরা। লাভলী টাওয়ারে পোশাকের পাশাপাশি গয়নার দোকানেও অনেক ভিড়। এই ভিড় ঠেলেই তিনি গয়নার শোরুমে এসেছেন। ম্যাচিং করে কিনেছেন চুড়ি ও গয়না। পিতলের গয়নার ছোট ছোট পাথরের কাজ। তিনি জানান, এবার নতুন নতুন ডিজাইনের গয়না এসেছে। যদিও দোকানিরা দাম অনেক বেশি বলে। কিন্ত দর কষলে অনেক কমানো যায়।
আরেকজন ক্রেতা আরিফা খাতুন জানান, ‘আমি গয়নার তেমন কিছু বুঝি না। তবে আমার বন্ধুকে ঈদ উপলক্ষে গয়না গিফট করছি। দাম যা বলেছে। তাতেই কিনেছি।’
সেখান থেকে বেরিয়ে শহরে সদ্য নির্মিত মায়াবীনি মার্কেটে যেয়ে দেখা গেল, এবার ঈদে পোঁড়া মাটির ওপর পাথর, চুমকি ব্যবহারে গয়নার দোকান রয়েছে। এছাড়া গয়নার বৈচিত্র্য আনতে পুতির সঙ্গে ধাতু, শেল বা সুতার মিশ্রণে গয়নার নকশা রয়েছে সেখানে। এখানে কানের দুল বিক্রি হচ্ছে ৫০ থেকে ২০০ টাকা পর্যন্ত, ব্রেসলেট ১৫০ থেকে ৩৫০ টাকা, বিভিন্ন ডিজাইনের গয়না ৩০০ থেকে ৮০০ টাকা পর্যন্ত। এদিকে রূপার বাজারে গয়নার চাহিদা অনেক বেশি। ঈদকে কেন্দ্র করে রূপার গয়নার বাজারেও মেয়েদের ভিড় রয়েছে। গয়নার দোকানগুলোতে এসব রূপার গয়না পাওয়া যায়। মধ্যবিত্ত, উচ্চ মধ্যবিত্ত ও উচ্চবিত্তরা নিজেদের ডিজাইন কিংবা শোরুমে সজ্জিত গয়না কিনে থাকেন। অনেকে রূপার ওপর স্বর্ণের প্রলেপ দিয়ে থাকেন। ফলে দেখতে অনেকটা স্বর্ণের গয়নার মতোই হয়। এবার রুপার গয়না গোল্ড প্লেট, কপার ও এন্টিক এই তিনরূপে পাওয়া যাচ্ছে। সাজে বৈচিত্র্য আনতে ডিজাইনাররা বেছে নিয়েছেন এসব নতুন ডিজাইন। সে সঙ্গে ব্যবহার করেছেন প্রচুর পরিমাণে মুক্তা । উৎসবমুখী গয়নার পাশাপাশি এবারে গয়নার বাজারের বৈশিষ্ট্য, কাজের জায়গায় পরার উপযোগী ছোট নকশার গয়নারও পসরা সাজিয়েছেন দোকানিরা। এসব গয়নার প্রকারভেদে খরচ পড়বে ৩০০ থেকে দশ হাজার টাকার মধ্যে । মায়াবিনী মার্কেটে আসা শিলা বলেন, নীল শাড়ির সঙ্গে মিলিয়ে পরার জন্য রুপার গয়না বেছে নিয়েছেন। সে সঙ্গে নীলা পাথর ও মুক্তার ব্যবহার রয়েছে। রুপার নূপুরও কিনেছেন তিনি। এদিকে কুষ্টিয়া শহরের ফুটপাতগুলোতে ইমিটেশন, কাঠ, স্টোন ও বিভিন্ন জিনিস দিয়ে তৈরি গহনা ও কসমেটিকের দোকানগুলোতে ভিড়। শুধু উচ্চবিত্তই নয়, মধ্যবিত্ত ক্রেতারাও ভিড় জমিয়েছে এই দোকানগুলোতে। লাভলী টাওয়ারের বাইরেই রয়েছে এ ধরণের অনেক দোকান। এই দোকানগুলোতে রয়েছে কানের ঝুমকা, চুড়ি, আংটি, মালা, হেয়ার ক্লিপ, পায়ের নূপুর ও আরো বাহারি রকমের গহনা। এসব দোকানের জন্য কোনো ভাড়া দিতে হয় না বলে জানালেন ব্যবসায়ীরা। রশিদ লেদারে সর্বোচ্চ গহনার সেট পাওয়া যাচ্ছে ১৫০০ টাকায়। সিটি গোল্ডের সর্বোচ্চ মূল্যের চুড়ি ৬০০ টাকা। এছাড়া, মোটা সিটি গোল্ডের চুড়ি ২০০ থেকে ৩০০ টাকায় পাওয়া যাচ্ছে । বাহারি রঙ ও এন্টিক ডিজাইনের তৈরি কানের দুল পাওয়া যাচ্ছে ১০০ টাকা থেকে ৪০০ টাকা পর্যন্ত। বিভিন্ন ডিজাইনের ব্রেসলেট পাওয়া যাচ্ছে এসব দোকানগুলোতে। বিভিন্ন ডিজাইনের কাঠের তৈরি মালা ও চুড়ি পাওয়া যাচ্ছে । বায়তুল মোকাররাম মসজিদ সংলগ্ন গ্রামীণ জুয়েলার্সের কর্মকর্তা জানান, ২২ ক্যারেট প্রতি ভরি ৫৭৪৫০ টাকা, ২১ ক্যারেট প্রতি ভরি ৫৪৮৭৯ টাকা, ১৮ ক্যারেট প্রতি ভরি ৪৭০০৫ টাকা এবং রুপা প্রতি ভরি ১৫০০ টাকা।

Advertisements

About kumarkhalihotnews

Kumarkhali hot News

Posted on August 10, 2012, in কুষ্টিয়া and tagged , . Bookmark the permalink. Leave a comment.

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s

%d bloggers like this: